শনিবার, অক্টোবর ১, ২০ ২২
জাবেদ তালুকদার, নবীগঞ্জ ::
১৬ আগস্ট ২০ ২২
১১:০ ৬ অপরাহ্ণ

নবীগঞ্জে গৃহবধুর উপড় হামলা, মামলা করায় বাড়িঘর ভাংচুর

নবীগঞ্জে এক গৃহবধুর উপড় হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় হামলার শিকার গৃহবধু ভমরা বেগম (৫০) নবীগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করায় তার বাড়িঘর ভাংচুর করেছে হামলাকারীরা।

হামলার শিকার ভমরা বেগম নবীগঞ্জ উপজেলার ৬নং কুর্শি ইউনিয়নের জুহুরপুর গ্রামের ছাও মিয়ার স্ত্রী। গৃহবধু ভমরা বেগম অভিযোগ করে বলেন- ”গত (বৃহস্পতিবার) ১১ আগস্ট দুপুরে একই গ্রামের মৃত আলম মিয়ার পুত্র (৪০) ও মৃত আছাব উল্লার পুত্র তাহির মিয়া (৪০) আমার বাড়িতে হামলা করে আমাকে মারধোর করে আমার গলায় থাকা ১ ভরি ওজনের ৭৫ হাজার টাকা মূল্যের একটি স্বর্ণের চেইন ও স্টীলের আলমারি থেকে ৩০ হাজার টাকা চুরি করে নিয়ে যায়।

এ ঘটনায় আমি হামলাকারীদের নামে নবীগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করি। অভিযোগটি তুলে নেয়ার জন্য রফি মিয়া ও তহির মিয়া আমাকে হুমকি প্রদান করে। এরপরও আমি অভিযোগ তুলে না নেওয়ায় গত রবিবার (১৪ আগস্ট) রাতে রফি মিয়া ও তহির মিয়া দা, রামদা সহ দেশীয় অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে আমার বাড়িঘরে হামলা চালিয়ে আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং আমার বাড়িঘর ভাংচুর করে মামলা তুলে না নিলে আমাকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে চলে যায়।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়- রফি মিয়া ও তহির মিয়া প্রতিনিয়ত রাতের বেলা ভমরা বেগমের প্রতিবেশী মহিমা বেগমের ঘরে আসা-যাওয়া করত। ভমরা বেগম বসত ঘরের বাইরে রাত্রিবেলা বৈদ্যুতিক বাতি জ্বালিয়ে রাখলে সকাল বেলা উঠিয়া তা আর পান না। তিনি খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন রফি মিয়া ও তহির মিয়া বাতি গায়েব করে দেয়। প্রায় সময়ই তারা তার ঘরের টিনের চালে ঢিল মারে। রফি মিয়া ও তাহির মিয়া প্রায়ই তার ঘরের আশে পাশে রাত্রিবেলা বসে থাকে।

এতে ভমরা বেগম প্রতিবাদ করায় রফি মিয়া ও তহির মিয়া তার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে এবং তাকে মারপিট ও খুন-জখমের হুমকি প্রদর্শন করে। বিষয়টি তিনি প্রতিবেশী রংফুল বেগমকে জানালে রফি মিয়া ও তহির মিয়া উত্তেজিত হয়ে গত (বৃহস্পতিবার) ১১ আগস্ট দুপুর ১টার দিকে তার বসতঘরে হামলা চালিয়ে তাকে মারধোর করে রক্তাক্ত জখম করে ফেলে রাখে এবং তার গলায় থাকা ১ ভরি ওজনের ৭৫ হাজার টাকা মূল্যের একটি স্বর্ণের চেইন ও স্টীলের আলমারি থেকে ৩০ হাজার টাকা চুরি করে নিয়ে যায়।

তার শোর চিৎকারে পাড়া প্রতিবেশীরা গিয়ে তাকে নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন। ভমরা বেগম বলেন- রফি মিয়া ও তহির মিয়ার ভয়ে আমি চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভূগতেছি। মামলা করায় তারা আমার বাড়িঘরে হামলা চালিয়ে আমাকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়েছে। আমি প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

ফেইসবুক কমেন্ট অপশন
এই বিভাগের আরো খবর
পুরাতন খবর খুঁজতে নিচে ক্লিক করুন


আমাদের ফেসবুক পেইজ