রবিবার, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০ ২১
কমলগঞ্জ(মৌলভীবাজার)প্রতিনিধি::
২২ জুলাই ২০ ২১
৮:৩৬ অপরাহ্ণ

বাঁধা মানছেনা উঠতি বয়সী ছেলে মেয়েরা ভীড় জমাচ্ছে পর্যটনকেন্দ্রে

ঈদুল আযহা উপলক্ষে বন্ধ থাকা পর্যটন কেন্দ্রগুলোতে বাধা উপেক্ষা করে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের পর্যটন স্পট গুলোতে উঠতি বয়সী ছেলে মেয়েদের উপছে পড়া ভীড় লক্ষ্য করা গেছে।

পদ্মকন্যার নয়নাভিরাম মাধবপুর লেক, প্রকৃতির সৌন্দর্য্যের অপার লীলা নিকেতন দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম রেইন ফরেস্ট লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান আর ‘ঝর্ণা সুন্দরী’র হামহাম জলপ্রপাত, বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান স্মৃতি সৌধ ছিল দর্শনার্থীদের পদভারে মুখরীত। কমলগঞ্জের নৈসর্গের অপরূপ সৌন্দর্য উপভোগ করতে ঈদের ছুটিতে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ছুটে আসেন বিভিন্ন শ্রেণী পেশার পর্যটকরা।

বুধবার ঈদের দিনসহ ঈদের পরের দিন ও তার ব্যতিক্রম ছিল না। মাধবপুর লেক আর লাউয়াছড়া উদ্যানে দেখা মিলে এসকল উঠতি বয়সী দর্শনার্থীদের। লকডাউন শিথিল হওয়ার কারণে নিরাপত্তাকর্মীদের বাঁধা উপেক্ষা করে পর্যটকরা ঢুকে পড়েন মাধবপুর লেকসহ অন্যান্য পর্যটনকেন্দ্র গুলোতে।

এদিকে কঠোর লকডাউনের কারণে পর্যটকরা আসতে না পারায় জীববৈচিত্র্যে ভরপুর লাউয়াছড়া উদ্যানে দেখা মেলে বিভিন্ন বিরল প্রজাতির প্রাণী। ১৯২৫ সালে ১২৫০ হেক্টর জায়গা জুড়ে তৈরি করা প্লান্টেশনই এখনকার গহীন অরণ্যের রূপ নিয়েছে। ৭টি বন্যপ্রাণী অভয়ারণ্য ও ১০টি জাতীয় উদ্যানের একটি লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান বাংলাদেশে অবশিষ্ট চিরহরিৎ বনের একটি হিসেবে টিকে আছে। ১৯৯৬ সালে এই বনকে ‘জাতীয় উদ্যান’ হিসেবে ঘোষণা করা হয়।

বিলুপ্তপ্রায় উল্লুকের জন্য এ বন বিখ্যাত। পাহাড়ের উঁচু নিচু টিলায় রয়েছে ২টি খাসিয়া আদিবাসী পল্লী। নিরক্ষীয় অঞ্চলের চিরহরিৎ বর্ষাবন বা রেইন ফরেস্টের মতো এখানেও প্রচুর বৃষ্টিপাত হয়। অন্যান্য বছর গুলোতে পবিত্র ঈদের দিন ও ঈদের পরের ৩ দিন লাউয়াছড়া, মাধবপুর লেক, বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান স্মৃতি সৌধ নয়নাভিরাম হামহাম জলপ্রপাতে সকাল থেকেই সন্ধ্যা পর্যন্ত পর্যটকদের উপচে পড়া ভিড়ে মুখরিত হয়ে উঠতো ফলে গ্রাম্য রাস্তাগুলো শহরের মতো যানজটের সৃষ্টি হত। ঈদের ছুটিতে যেন মানুষের মিলন মেলায় পরিণত হত প্রকৃতির সৌন্দর্য্যের অপার লীলা নিকেতন সবুজ বনের লাউয়াছড়া উদ্যান আর পদ্মকন্যার মাধবপুর লেকটি। তখন বেড়াতে আসা পর্যটকদের সামাল দিতে সংশ্লিষ্টদের পাশাপাশাশি পর্যটন পুলিশ ও কমলগঞ্জ থানা পুলিশ,সিএমসি,বনবিভাগের কর্মকর্তা, সিপিজি, টুরিস্ট ম্যানেজমেন্ট (অতিরিক্ত) সদস্যদের হিমশিম খেতে দেখা যেত । অপরদিকে কমলগঞ্জের মাধবপুর চা বাগানে অবস্থিত মাধবপুর লেকে সকল শ্রেনী পেশার মানুষের উপস্থিতি থাকতো লক্ষ্যনীয়। লেকের চারপাশে বিশাল টিলায় সারিবদ্ধ ছোট-বড় গাছ আর সবুজ চা গালিচার টিলার মাঝখানে এ জলরাশি।

টলটলে রূপালী জলের সঙ্গে দিবা-নিশির মিতালি করছে নীল পদ্মফুল। জলের আলো ছায়ার নীল পদ্মের লুকোচুরি খেলা মনমুগ্ধ করে আগত পর্যটকদের। প্রকৃতি অপরূপ সাজে সেজে নিজের রূপ দিয়েই আকর্ষণীয় হয়ে উঠায় জলের পদ্ম কন্যার মায়ায় আকড়ে ধরে দেশী-বিদেশী পর্যটকদের এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি।

ফেইসবুক কমেন্ট অপশন
এই বিভাগের আরো খবর
পুরাতন খবর খুঁজতে নিচে ক্লিক করুন


আমাদের ফেসবুক পেইজ