রবিবার, জুলাই ৩, ২০ ২২
স্টাফ রিপোর্টার: :
৪ আগস্ট ২০ ১৮
৫:৩২ অপরাহ্ণ

সিলেটে নিরাপদ সড়কের জন্য শিক্ষার্থীদের প্রতিবাদ পুলিশের হাতে গ্রেফতার ৬

সড়কে নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দাবীতে আন্দোলন সারা বাংলাদেশে এর আগে হলেও এবারের মত আলোড়ন তৈরি হয়নি কখনোই। গত তিনদিনের মত শুক্রবারও সারাদেশের ন্যায় সিলেটের বিভিন্ন জায়গায় স্কুল-কলেজের কিশোর শিক্ষার্থীদের অবস্থানের কারণে কার্যত অচল হয়ে যায় পুরো শহরের পরিবহন ব্যবস্থা।

অধিকাংশ জায়গাতেই শিক্ষার্থীরা গাড়ী-মোটর সাইকেলের লাইসেন্স দেখতে চায়। পাশাপাশি অ্যাম্বুলেন্স বা ফায়ার সার্ভিসের মত জরুরি সেবাদানকারী সংস্থার গাড়ী যাওয়ার সুযোগ করে দেয়। সারা বাংলাদেশের শিক্ষার্থীর মত সিলেটের বিভিন্ন স্কুল, কলেজ ও বিশ^বিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীদের উপস্থিতিতে সিলেট কেন্দ্রীয় শহদি মিনার প্রাঙ্গনে ও তার আশ পাশ এলাকা জুড়ে নিরাপদ সড়কের দাবীতে শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করে। এতে সাধারণ শিক্ষার্থীদের সাথে তাদের অনেকেরই অভিভাবকদের অংশগ্রহন ছিল চোঁখে পড়ার মত। সাধারণ শিক্ষার্থীদের ৯ দফা দাবি নিয়ে বিভিন্ন প্লে-কার্ড, ব্যানার ও ¯েøাগানে মুখরিত ছিল সিলেট শহীদ মিনার প্রাঙ্গন। কিন্তু পুলিশ ও ক্ষমতাসীন দলের সংগঠন ছাত্রলীগের বাধার সম্মুখিন হন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। তাদের এ শান্তিপ্রিয় আন্দোলনে পুলিশের সহযোগীতায় স্থানীয় আওয়ামীলীগ ও ছাত্রলীগের কর্মীরা হামলা করে, এতে লাঞ্চনার শিকার হন আন্দোনরত সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

এক পর্যায়ে আন্দোলনের নেতৃত্বে দেওয়ার কারনে সিলেট কমার্স কলেজের ছাত্র মোঃ সায়েম হাওলাদার, সিলেট মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটির ছাত্র জাহিদ হাসান, নর্থইস্ট ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশের ছাত্র মোঃ সাহেদ আহমদ, লিডিং ইউনিভার্সিটির ছাত্র পলাশ বর্মন ও গোলাম কিবরিয়া সহ আরো কয়েকজন সাধারণ শিক্ষার্থীকে পুলিশ গ্রেফতার করে নিয়ে যায় এবং বাকি আন্দোলনরত ছাত্রদের টিয়ারসেল নিক্ষেপ করে ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

উল্লেখ্য যে, গত ২৯শে জুলাই রবিবার রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কের কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের সামনে এমইএস বাসস্ট্যান্ডে জাবালে নূর পরিবহনের দুই বাসের প্রতিযোগিতায় বাসচাপায় নিহত হন শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র আবদুল করিম রাজীব এবং একাদশ শ্রেণির ছাত্রী দিয়া খানম মিম।

ফেইসবুক কমেন্ট অপশন
এই বিভাগের আরো খবর
পুরাতন খবর খুঁজতে নিচে ক্লিক করুন


আমাদের ফেসবুক পেইজ