রবিবার, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০ ২১
বিজ্ঞপ্তি::
৯ সেপ্টেম্বর ২০ ২১
১০ :১৯ অপরাহ্ণ

আধুনিকতাকে আদর্শবাদিতায় রূপান্তরে সচেষ্ট ছিলেন কবি লাভলী চৌধুরী
কবি লাভলী চৌধুরীর স্মরণসভা অনুষ্ঠিত

কবি লাভলী চৌধুরী ছিলেন বাংলাসাহিত্যের প্রতিশ্রুতিশীল কথাশিল্পী। তাঁর চিন্তাচেতনায় সৌন্দর্যের একটা পরিস্ফুটন ছিল। যা তাঁর সাহিত্যে প্রতিভাত হয়েছিল। একজন ধীমান লেখিকা হিসেবে তিনি আধুনিকতাকে আদর্শবাদিতায় রূপান্তর করতে সচেষ্ট থেকেছেন। বহুমাত্রিক চিন্তার সুশোভিত ধারায় তাঁর সাহিত্যে সত্য ইতিহাস, তীক্ষ্ণ পর্যবেক্ষণ আর প্রবল স্মৃতিকাতরতা প্রগাঢ়ভাবে ফুটে উঠেছিল। কোনো বলয় বা পরিমণ্ডলে বেষ্টিত না থেকে তিনি সার্বজনীন বিশ্বাসবোধ এবং কল্যাণচিন্তাকে তাঁর সাহিত্যে উপজীব্য করে তুলেছেন। যা তাঁকে সাহিত্যে দিয়েছে অনন্য পরিচয়।

পাণ্ডুলিপি প্রকাশন, সিলেট-এর আয়োজনে সিলেটের বিশিষ্ট লেখক ও সংগঠক কবি লাভলী চৌধুরী’র স্মরণসভায় বক্তারা এসব কথা বলেন। পাণ্ডুলিপি প্রকাশনের স্বত্বাধিকারী বায়েজীদ মাহমুদ ফয়সল-এর সভাপতিত্বে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় (৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রি.) সিলেট কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদের সাহিত্যসভা হলে অনুষ্ঠিত এই স্মরণসভায় সম্মানিত আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন মদনমোহন কলেজ, সিলেট-এর প্রাক্তন প্রিন্সিপাল লে. কর্নেল এম. আতাউর রহমান পীর, এমসি কলেজ, সিলেট-এর প্রাক্তন ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ প্রফেসর নন্দলাল শর্মা, জালালাবাদ ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ, সিলেট-এর প্রাক্তন অধ্যক্ষ লে. কর্নেল সৈয়দ আলী আহমদ (অব.), বর্ষীয়ান সাংবাদিক ও কলামিস্ট আফতাব চৌধুরী, সিলেট লেখিকা সংঘের সাবেক সভানেত্রী কবি নূরুন্নেছা চৌধুরী রুনী এবং কবি, প্রাবন্ধিক ও কলামিস্ট বেলাল আহমদ চৌধুরী। কবি পপি রশীদের সঞ্চালনায় শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন মো. আব্দুল বাছিত। স্মরণসভার শেষে মোনাজাত করেন কবি ও প্রাবন্ধিক আব্দুল জলিল চৌধুরী।

সম্মানিত আলোচকের বক্তব্যে লে. কর্নেল এম. আতাউর রহমান পীর বলেন, কবি লাভলী চৌধুরী মানবিকবোধ সম্পন্ন একজন লেখিকা ছিলেন। সাহিত্যকেন্দ্রিক চিন্তাভাবনায় তিনি ছিলেন আদর্শের অনুগামী। ব্যক্তি জীবনেও তিনি ছিলেন সেই আদর্শের প্রচারক। তিনি যেমনি আধুনিকতাকে ধারণ করেছেন মননে, তেমনি সার্বজনীন চিন্তায় বিশ্বাসবোধকে পরিস্ফুটিত করে তুলেছেন। তাঁর প্রকাশিত ও অপ্রকাশিত রচনাসমগ্র নতুন প্রজন্মের কাছে পৌঁছানো সময়ের দাবী। এ ব্যাপারে সিলেটের সৃজনশীল প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান পাণ্ডুলিপি প্রকাশন যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করবে বলে আমার বিশ্বাস। এমসি কলেজ, সিলেট-এর প্রাক্তন ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ প্রফেসর নন্দলাল শর্মা বলেন, কবি লাভলী চৌধুরীর ধ্যান-জ্ঞানে ছিল সাহিত্যের মৌল উপাদান। এই উপাদানকে শৈল্পিকভাবে যেভাবে ধারণ করেছেন, সেভাবে কলমের কালিতেও অঙ্কন করেছেন। পারিবারিক ঐতিহ্য থেকে তাঁর ভেতরে সাহিত্যের যে ধারা সৃষ্টি হয়েছিল, এটাকেই তিনি উচ্চকিত করেছেন তাঁর চিন্তাচেতনায়। সিলেটের সাহিত্যে তিনি প্রেরণা হিসেবে কাজ করবেন। লে. কর্নেল সৈয়দ আলী আহমদ (অব.) বলেন, কবি লাভলী চৌধুরী সৌন্দর্য চেতনার কবি ছিলেন। আধুনিক মনস্তাত্ত্বিক সংঘাতে সাহিত্যের যে অস্তিত্ব, এটাকে পৃথিবীতে সাহিত্যিকরাই বাঁচিয়ে রেখেছেন।

বিশ্বসাহিত্যে শেক্সপিয়রই তার প্রমাণ। কবি লাভলী চৌধুরীও তাঁর সাহিত্যসাধনায় বেঁচে থাকবেন অনেকদিন। তাঁর কবিতা এবং শিল্প ছিল সৌন্দর্যচেতনার দ্যোতক। বর্ষীয়ান সাংবাদিক ও কলামিস্ট আফতাব চৌধুরী বলেন, সাহিত্যের বিভিন্ন শাখায় তাঁর লক্ষণীয় বিচরণ ছিল মুগ্ধ করার মতো। মানুষ হিসেবে তিনি যে আদর্শকে বিশ্বাস এবং ধারণ করতেন, তাঁর সাহিত্যচেতনায় এটা অত্যন্ত প্রকট ছিল। তিনি আপাদমস্তক একজন পরিশ্রমী ও নিষ্ঠাবান নারী ছিলেন। এই গুণেই তিনি সাহিত্যে অবদান রেখেছেন। সিলেট লেখিকা সংঘের সাবেক সভানেত্রী কবি নূরুন্নেছা চৌধুরী রুনী বলেন, কবি লাভলী চৌধুরী’র সাহিত্যে সৌন্দর্য এবং বিশ্বাস একীভূত হয়ে গিয়েছিল। এই দুটো বিষয়ের সমন্বয়ে তিনি নিজেকে সাহিত্যাঙ্গণে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। সিলেটের সাহিত্যাঙ্গণে তিনি নারী সমাজের জন্য অনুকরণীয় হয়ে থাকবেন। কবি, প্রাবন্ধিক ও কলামিস্ট বেলাল আহমদ চৌধুরী বলেন, কবি লাভলী চৌধুরী’র জীবনে আভিজাত্যের ছোঁয়া ছিল।

তবে এই ছোঁয়া তাঁকে বিলাসিতায় নিয়ে যেতে পারেনি। আধ্যাত্মিক চেতনাকে তাঁর সাহিত্যে তিনি ধারণ করেছেন গভীরভাবে। এখানেই কবি লাভলী চৌধুরীর অনন্যতা। সভাপতির বক্তব্যে পাণ্ডুলিপি প্রকাশনের স্বত্বাধিকারী বায়েজীদ মাহমুদ ফয়সল বলেন, কবি লাভলী চৌধুরী’র সঙ্গে আমার গভীর সম্পর্ক ছিল। তিনি আমার মায়ের বয়সী একজন বড় বোন ছিলেন। যেকোনো প্রয়োজনে তিনি আমার পাশে দাঁড়াতন। সাহিত্য-সংস্কৃতির চর্চায় তাঁর সঙ্গে আমার অসংখ্য স্মৃতি জড়িত আছে। একজন আদর্শিক চেতনার কবি ও লেখিকা হিসেবে তাঁর রচনাসমগ্র প্রকাশ করতে আমরা আপ্রাণ চেষ্টা করবো। এর মাধ্যমে তাঁর প্রতি আমাদের কৃতজ্ঞতা প্রকাশ পাবে। এর জন্য সিলেটের সাহিত্যাঙ্গনের সংশ্লিষ্ট সকলের আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করি। উল্লেখ্য, গত ৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ খ্রিস্টাব্দের শনিবার হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে কবি লাভলী চৌধুরী ইন্তেকাল করেন।

ফেইসবুক কমেন্ট অপশন
এই বিভাগের আরো খবর
পুরাতন খবর খুঁজতে নিচে ক্লিক করুন


আমাদের ফেসবুক পেইজ