রবিবার, জুলাই ৩, ২০ ২২
বালাগঞ্জ প্রতিনিধি::
২০ জুন ২০ ২২
১০ :১৬ অপরাহ্ণ

অনুমোদনহীন দেশ মেডিকেয়ারের কার্যক্রম বন্ধের নির্দেশ
বালাগঞ্জে ভূল চিকিৎসায় রোগী মৃত্যুর অভিযোগ

বালাগঞ্জে ভূল চিকিৎসায় এক যুবকের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। গত রবিবার (১৯ জুন) বিকেলে বালাগঞ্জ বাজারস্থ মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে অবস্থিত ডায়াগনস্টিক সেন্টার দেশ মেডিকেয়ারে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. শাহিন কবিরের ভূল চিকিৎসায় উপজেলার বালাগঞ্জ ইউনিয়নের রুপিয়া গ্রামের আজির মিয়ার ছেলে মামুনুর রশীদ অনু (২৮) এর মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন মৃতের পরিবার।

মামুনুর রশীদ অনুর পরিবার ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, গত শনিবার (১৮ জুন) রাত্রে অনু'র শারীরিক দূর্বলতা ও প্রেশার হাই হয়ে যাওয়ার কারণে তাকে বালাগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসা হয়। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বন্যা পরিস্থিতির অবনতির কারণে কোনো চিকিৎসক না থাকায় পরবর্তীতে তাকে দেশ মেডিকেয়ারে নিয়ে আসা হয়।

সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. শাহিন কবির তার শারীরিক দূর্বলতার কারণে একটি স্যালাইন পুশ করেন। পরে, শরীরের প্রেশার ঠিক থাকার ও ঘুমানোর জন্য "মাইলাম" ইনজেকশন পুশ করার সাথে সাথেই অনু'র শরীরে ঝাকুনী দিয়ে অজ্ঞান হয়ে পড়েন অনু। পাশে থাকা তার বোন তখনই আঁচ করতে পেরেছিলেন যে তার ভাই মারা গেছেন। কিন্তু চিকিৎসক শাহীন কবির তাদেরকে আশ্বস্ত করতে থাকেন যে, রোগী এখনো জীবিত আছেন এবং ঘুমাচ্ছেন। অনু'র পরিবারের সদস্যদের বরাত দিয়ে জানা গেছে, অনু রবিবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে মৃত্যুবরণ করেছেন।

ভূল চিকিৎসায় রোগী মৃত্যুর খবরটি উপজেলা সদরের চারিদিকে ছড়িয়ে পড়ার সাথেই সাথেই মানুষজন দেশ মেডিকেয়ারে জটলা করেন এবং চিকিৎসক শাহিন কবির যাতে সেখান থেকে পালাতে না পারেন সে ব্যবস্থা করেন। পরে, পরিস্থিতি সামাল দিতে বালাগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে এবং চিকিৎসক শাহীন কবিরকে আটক করে নিয়ে যায়।

চিকিৎসক শাহীন কবিরকে আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে বালাগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রমাপ্রসাদ চক্রবর্তী বলেন, নিহতের পরিবার আইনি কোনো পদক্ষেপে যাবেন না বলে থানায় লিখিতভাবে জানিয়েছেন। এদিকে, এ ঘটনার পরপরই দেশ মেডিকেয়ারের অনুমোদন নিয়ে সরব হয়েছিলেন বালাগঞ্জের সচেতন মহল। জানা যায়, দেশ মেডিকেয়ার চালু হয়েছে গত ১০ জুন। কার্যক্রম চালু হলেও অনুমোদন নেই এই ডায়াগনস্টিক সেন্টারটির। তবে, অনুমোদনের জন্য দেশ মেডিকেয়ার কর্তৃপক্ষ যথাযথ নিয়ম মেনে আবেদন করেছেন বলে জানা গেছে। ফলে তাদের আবেদনটি আবেদিত অবস্থায় আছে এবং এখনো অনুমোদিত হয়নি। কিন্তু স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বেসরকারি খাতে হাসপাতাল/ক্লিনিক বা ডায়াগনস্টিক সেন্টার নীতিমালার ২.ক.২ এ স্পস্ট উল্লেখ আছে, কোনো হাসপাতাল/ক্লিনিক বা ডায়াগনস্টিক সেন্টারের প্রয়োজনীয় অনুমোদন পাওয়ার পূর্বে কার্যক্রম শুরু করতে পারবেন না। এ বিষয়ে বালাগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. হেপী দাস বলেন, আমি ইউ.এন.ও মহোদয়ের সাথে এ বিষয়ে কথা বলেছি। তিনি দেশ মেডিকেয়ার কর্তৃপক্ষকে তাদের কার্যক্রম বন্ধের জন্য নির্দেশ প্রদান করেছেন। এ বিষয়ে বালাগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রোজিনা আক্তার বলেন, অনুমোদন পাওয়ার আগ মূহুর্ত পর্যন্ত আমি দেশ মেডিকেয়ার কর্তৃপক্ষকে তাদের কার্যক্রম বন্ধের জন্য নির্দেশ প্রদান করেছি।

ফেইসবুক কমেন্ট অপশন
এই বিভাগের আরো খবর
পুরাতন খবর খুঁজতে নিচে ক্লিক করুন


আমাদের ফেসবুক পেইজ