রবিবার, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০ ২১
এস এ ডিউক ভূঁইয়া-তিতাস(কুমিল্লা)::
৬ সেপ্টেম্বর ২০ ২১
৭:৫০ অপরাহ্ণ

তিতাসে নির্মাণ সামগ্রী রেখে খেলার মাঠ দখল!

কুমিল্লার তিতাস উপজেলায় ব্যবসা ও সংস্কার কাজের নামে কয়েকজন ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে মাছিমপুর আর আর ইনস্টিটিউশনের খেলার মাঠ দখলের অভিযোগ উঠেছে।স্কুলের মাঠ দখল করে নির্মাণসামগ্রী রেখে খেলার মাঠের ক্ষতি সাধন করছে মেসার্স সরকার ট্রেডার্স ও আরও কয়েকটি ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান।

স্কুল কর্তৃপক্ষ কয়েকবার বলার পরও বার বার সময় নিয়েও সরাচ্ছে না সরকার ট্রেডার্স এর মালিক রিপন সরকার।স্কুল কর্তৃপক্ষের নীরবতায় স্থানীয়দের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে।সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়,ইট,পাথর,বালু, বাঁশ, পিকআপ ও ভ্যান রেখে মাঠের উত্তর অংশটি একপ্রকার দখল করে রেখেছে। বলরামপুর, কলাকান্দি ইউনিয়ন ও আশেপাশের ইউনিয়নের খেলোয়াড়দের খেলাধুলার জন্য একমাত্র খেলার মাঠ এটি।কিন্তু মাঠটি দখল করে খেলাধুলার বিঘ্ন ঘটাচ্ছে এসব স্বার্থান্বেষী মহল।

এই বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে,মেসার্স সরকার ট্রেডার্সের মালিক রিপন সরকার বলেন,আমি বালি,পাথর সরিয়ে নিব খুব শীঘ্রই। অনেকটা ধমকের সুরে বিভিন্ন নেতা ও প্রভাবশালী তার আত্মীয় হন বলে সাংবাদিকদের হুংকার দেন। প্রায় ৮ মাস যাবত সে স্কুলের মাঠ দখল করে রেখেছে।বিষয়টি নিয়ে স্কুলের প্রধান শিক্ষক মাহফুজুর রহমান চৌধুরী বলেন,রাস্তার কাজের জন্য ২ মাস মালগুলো রাখবে মৌখিক অনুমতি নিয়ে রেখেছিল,কিন্তু অনেকবার সময় নিয়েও বালু,পাথর সরাচ্ছে না।বারবার বলা হয়েছে মালমালগুলো সরিয়ে নেবার জন্য।


কিন্তু আজ নিব, কাল নিব বলে সে সরাচ্ছে না। আর খেলার মাঠে ইট,কংকর ও বালির স্তূপ করে রেখে মাঠের ব্যাপক ক্ষতি করছে।ক্রিকেটার সাদ্দাম হোসেন, ফুটবলার সালমান শাহ বলেন, মাঠ ইট-বালুতে ঢাকা পড়ে যাওয়ার কারণে খেলোয়াড়দের ক্রিকেট, ফুটবল খেলা চালিয়ে নিয়ে যেতে সমস্যা হচ্ছে। অনেকের পা কেটে রক্ত বের হয়,আবার অনেকের পা মচকে গিয়ে বিচানায়।বিষয়টি আমরা অনেক বার স্কুল কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি।কিন্তু কোন প্রতিকার পাইনি।

মাঠে কুমিল্লা-২(হোমনা-তিতাস) আসনের সংসদ সদস্য সেলিমা আহমাদ মেরী'র নির্দেশ সম্বলিত সাইনবোর্ড লাগানো রয়েছে, যাতে মাঠে কেউ ইট,বালু,পাথর,গাড়ি রেখে মাঠের সৌন্দর্য নষ্ট করা না হয়।কিন্তু কেউ মানছে না এই নির্দেশ।খেলার মাঠের সংস্কার কাজের জন্য মাছিমপুর আর আর ইনস্টিটিউশনের সাবেক সভাপতি ও স্থানীয় সাংসদ সেলিমা আহমাদ মেরী ১ লক্ষ টাকা দিয়েছেন।কিন্তু সংস্কার কাজ করা যাচ্ছে না ইট,বালু,পাথর না সরানোর জন্য।মাঠের খেলোয়াড়গণ অবিলম্বে ব্যবসায়ী ও ঠিকাদারের কবল থেকে খেলার মাঠ দখলমুক্ত করতে ঊর্ধ্বতন প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন।

ফেইসবুক কমেন্ট অপশন
এই বিভাগের আরো খবর
পুরাতন খবর খুঁজতে নিচে ক্লিক করুন


আমাদের ফেসবুক পেইজ