শনিবার, অক্টোবর ১, ২০ ২২
এস ডি সুব্রত::
৯ আগস্ট ২০ ২২
২:০ ৯ অপরাহ্ণ

আশুরার সংক্ষিপ্ত ইতিহাস: এস ডি সুব্রত

আশুরা ইসলামের একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ও তাৎপর্যপূর্ণ দিন। ইসলামী পঞ্জিকা অনুসারে মহররম মাসের দশ তারিখ পবিত্র আশুরা পালিত হয় । আরবী আশারা থেকে আশুরা শব্দের উৎপত্তি যার অর্থ হচ্ছে দশ।এ কারনেই এ মাসের দশ তারিখকে আশুরা বলা হয়। আশুরার দিনে অনেক তাৎপর্যপূর্ণ ঘটনা ঘটেছে।

পবিত্র হাদিসে আছে আল্লাহ তায়ালা যে দিন আকাশ বাতাস নদী নালা পাহাড় পর্বত জান্নাত জাহান্নাম ও যাবতীয় সৃষ্ট জীবের আত্মা সৃষ্টি করেছেন সেদিন ছিল দশ মহররম তথা পবিত্র আশুরার দিন। আবার ঐ দিনেরই কোন এক জুম্মাবারে হযরত ইস্রাফিল (আ.) এর ফুৎকারে মহাপ্রলয় হবে কোরআন এর ভাষায় একে বলা হয় কেয়ামত।ইসলামের আদি পিতা হযরত আদমকে সৃষ্টি করা হয় এই দিনে। এবং এই দিনেই হযরত আদমকে জান্নাতে প্রবেশ করানো হয়। এ দিনেই ইসলাম জাতির পিতা হযরত ইবরাহিম (আ). জন্ম গ্রহণ করেন।এ আশূরাতেই তুড় পাহাড়ে আল্লাহর সাথে হযরত মুসা (আ. )এর কথোপকথন হয়। এ দিনেই জালিম ফেরাউন কে দলবলসহ কারো মতে লোহিত সাগরে আবার কারো মতে নীলনদে ডুবিয়ে মারা হয়।

এ দিনেই হযরত নুহ (আ). ও তার সঙ্গীরা মহাপ্লাবন থেকে মুক্তি লাভ করে।এ দিন মাছের পেট থেকে হযরত ইউনুস আ. এর পরিত্রান হয়। দশ মহররম ইতিহাস এর এক তাৎপর্যপূর্ণ দিন। হাদিস শরিফে মহররম মাসের ফজিলত এর আলাকে মুসলিম উম্মাহর জন্য এ মাসের আমল হলো " আশুরার শিয়াম" । এ দিনে আল্লাহ তায়ালা একটি জাতির তওবা কবুল করেন। রমজান মাসের রোজার পর সর্বোত্তম রোজা হলো আশুরার রোজা। সুন্নী মতানুযায়ীরা মুসার বিজয়ের স্মরণে আশুরার শাওম বা রোজা পালন করত। আর শিয়া মতাবলম্বীরা কারবালার বিষাদময় ঘটনার স্মরণে আশুরা পালন করে।

এ দিনটি শিয়া মুসলমানদের দ্বারা আনুষ্ঠানিক ভাবে পালন করা হয় জাঁকজমকপূর্ণ ভাবে।এ দিনে তারা তাজিয়া মিছিল বের করে।মাতম ও শোকের অনুষ্ঠানের আয়োজন করে থাকে। শিয়া সংখ্যাগরিষ্ঠ অঞ্চল পাকিস্তান, আফগানিস্তান,ইরান ,ইরাক,লেবানন ও বাহরাইন এ এসব অনুষ্ঠান অত্যন্ত জাঁকজমকপূর্ণ ভাবে পালন করা হয়। বাংলাদেশে শিয়া সম্প্রদায় আনুষ্ঠানিক ভাবে এ দিনটি পালন করে থাকে।এই আশুরার দিনে ইরাকের কারবালা প্রান্তরে ঘটে গেছে ইতিহাসের এক মর্মস্পর্শী হৃদয় বিদারক ঘটনা। রসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের দৌহিত্র হযরত ইমাম হুসাইন (রা) এই আশুরার দিনে সত্য ও ন্যায়ের পথে শাহাদাত বরন করেন।

কারো মতে আশুরার ঐতিহ্যের স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে কারবালার মর্মান্তিক ঘটনার অনেক আগে থেকেই। তাদের মতে কারবালার যুদ্ধ সংঘটিত হয় ৬১ হিজরীর মহররম আর আশুরার রোজা রাখা হয় আরো আগে। তবে এটাও ঠিক আশুরার দিন সংঘটিত বিভিন্ন ঘটনা যেমন গুরুত্বপূর্ণ তেমনি কারবালা ঘটনা মুসলিম জাতির জন্য খুবই হৃদয় বিদারক। লেখক: কবি ও প্রাবন্ধিক, সুনামগঞ্জ। ০১৭১৬৭৩৮৬৮৮ । sdsubrata2022@gmail.com

ফেইসবুক কমেন্ট অপশন
এই বিভাগের আরো খবর
পুরাতন খবর খুঁজতে নিচে ক্লিক করুন


আমাদের ফেসবুক পেইজ