বুধবার, এপ্রিল ২১, ২০ ২১
ডেস্ক নিউজ ::
২৩ মার্চ ২০ ২১
৩:০ ৬ অপরাহ্ণ

কিউইদের রেকর্ড জয়ে বাংলাদেশের হার, সিরিজ নিশ্চিত নিউজিল্যান্ডের

শেষ পর্যন্ত টস ল্যাথামের ব্যাটে ভর করে ম্যাচ জিতে নিল নিউজিল্যান্ড। সেই সঙ্গে তিন ম্যাচ সিরিজও ফয়সালা হয়ে গেল। প্রথম দুটি ম্যাচ হেরে সিরিজ খোয়ালো তামিমরা।

ক্রাইস্টচার্চে ল্যাথামের আজকের ব্যাটিংয়ের প্রশংসা করতেই হবে। তার নান্দনিক ব্যাটিংই একটা পর্যায়ে গলার কাঁটা হয়ে দাঁড়ায় টাইগারদের। এই মিডলঅর্ডার সেঞ্চুরিও করেছেন দলকেও জিতিয়ে মাঠ ছেড়েছেন। ডানেডিনে ৮ উইকেটে হারার পর আর ৫ উইকেটে হারল তামিম বাহিনী।

বাংলাদেশের ব্যাটসম্যারা ২৭১ রানের লড়াকু পুঁজি এনে দিয়েছিল। সেটি কাজে লাগিয়ে টাইগাররা শুরুটা করেছিলেন দুর্দান্ত। একপর্যায়ে ৫৩ রানে ৩ উইকেট পড়ে যায় কিউইদের। কিন্তু ল্যাথাম ও কনওয়ের চওড়া ব্যাট ম্যাচে ফেরায় নিউজিল্যান্ডকে। টাইগারদের ক্যাচ মিসের মহড়া সেই কিউইদের জয়ে শাপেভর হয়।

ক্রাইস্টচার্চের হাগলি ওভালে সর্বোচ্চ রান তাড়া করে জেতার রেকর্ড এটি। এর আগে স্কটল্যান্ড ২০১৪ সালের ৩০ জানুয়ারি কেনিয়ার ১০ উইকেটে তোলা ২৬০ রান টপকে ম্যাচ জিতেছিল। ব্যাট হাতে তুমুল ফর্মে থাকা মার্টিন গাপটিল বেশ দেখেশুনে শুরু করেছিলেন। তবে কিউই ওপেনারকে থিতু হতে দেননি মুস্তাফিজুর রহমান। আগ্রাসী হওয়ার আগেই গাপটিলকে সাজঘরের পথ দেখালেন বাঁহাতি এই পেসার।

মুস্তাফিজের করা পঞ্চম ওভারের শেষ বল মিডউইকেট দিয়ে রান নিতে চেয়েছিলেন গাপটিল। কিন্তু বল উপরে উঠে গেলে নিজের বলে নিজেই ক্যাচ নেন মুস্তাফিজ। ২৪ বলে ২০ রানে থামেন কিউই ওপেনার। এরপর হেনরি নিকোলসকে ফেরান মেহেদি হাসান। এরপর উইল ইয়ংকেও টিকতে দেননি নিজের দ্বিতীয় ওয়ানডে খেলতে নামা মেহেদি। নিউজিল্যান্ডের দলীয় ৫৩ রানে নিজের দ্বিতীয় উইকেট তুলে নেন তিনি। তিন উইকেট হারানোর পর ঘুরে দাঁড়ায় নিউজিল্যান্ড।

কনওয়ে রানআউট হয়ে মাঠ ছাড়লেও নান্দনিক ব্যাট চালিয়ে যান ল্যাথাম। ৪৬ তম ওভারে নিশামকে ক্যাচ আউট করেন মোস্তাফিজ। এর পরের ওভারেই সেঞ্চুরি তুলে দেন ল্যাথাম। তিনি ১১০ রানে অপরাজিত থাকেন। এর আগে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ছয় উইকেট হারিয়ে ২৭১ রান সংগ্রহ করেছে বাংলাদেশ। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৭৮ রান এসেছে তামিমের ব্যাট থেকে। ৭৩ রানে অপরাজিত ছিলেন মিঠুন।

ফেইসবুক কমেন্ট অপশন
এই বিভাগের আরো খবর
পুরাতন খবর খুঁজতে নিচে ক্লিক করুন


আমাদের ফেসবুক পেইজ