রবিবার, মার্চ ৩, ২০ ২৪
গোলাপগঞ্জ সংবাদদাতা::
১৬ জুলাই ২০ ২২
১০ :৩১ অপরাহ্ণ

গোলাপগঞ্জে কাজের মেয়ে আফিয়ার ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার : ৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের

সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলার পানিয়াগা গ্রামে এক কাজের মেয়ের ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। শুক্রবার (১৫ জুলাই) রাত সাড়ে এগারোটায় গোলাপগঞ্জ উপজেলার পানিয়াগা গ্রাম থেকে গাছের ডালে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় নিহত আফিয়া বেগমের বাবা আব্দুল বাছিত বাদি হয়ে, তার মেয়েকে শ্বাসরোধ করে হত্যার অভিযোগ এনে মো. আব্দুর রহমানকে প্রধান আসামি করে ৫ জনের নাম উল্লেখ করে ও ৬/৭ জনকে অজ্ঞাত রেখে গোলাপগঞ্জ থানার মামলা নং ১৭৫(০৭)২২ইং, ধারা:-১৪৩/৩২৩/৪৪৭/৩০২/৩৪ দঃবিঃ দাখিল করেন।

মামলার অন্যান্য আসামিরা হলেন গোলাপগঞ্জ উপজেলার মেহেরপুরের জমসিদ আলীর ছেলে আব্দুল খালিক, ও আব্দুর রহমান,পানিয়াগা গ্রামের সাইফুর রহমানের স্ত্রী সাজনা বেগম, সাজিদ আলীর ছেলে ইমরান আহমদ, সাইফুর রহমানের মেয়ে সাদিয়া রহমান। মামলার এজাহার সুত্রে জানা যায়, মামলার বাদি আব্দুল বাছিত একজন দিন মজুর। অভাবের তাড়ানায় তার একমাত্র মেয়ে আফিয়া বেগম-কে সাইফুর রহমানের বাড়িতে ঘরের কাজের জন্য দেন।

আফিয়া সে বাড়িতে থেকে দীর্ঘদিন যাবৎ সততা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করে আসছিল। কিন্তু শুক্রবার (১৫ জুলাই ) রাতে তার মেয়েকে সাজনা বেগম ও সাদিয়া রহমানের নেতৃত্বে এজাহার নামিয়রা মিলে মারপিট করে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর সাইফুর রহমানের বাড়ির আঙ্গিনায় গাছের ডালে ওড়না গলায় পেছিয়ে আত্মহত্যার নাটক সাজিয়ে ঝুলিয়ে রাখে। পরদিন সাজনা ও তার সঙ্গীয়রা এলাকাবাসীকে বলে আফিয়া আত্মহত্যা করেছেন। এলাকাবাসী পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ গিয়ে মৃতদেহ উদ্ধার করে সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করেন এবং ময়না তদন্তের জন্য সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃতদেহটি প্রেরণ করেন।

এ ব্যাপারে পানিয়াগা মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল ফয়জুর রহমান জানান, সাইফুর রহমানের ঘরের কাজের মেয়ে আত্মহত্যার বিষয়টি তিনি এলাকাবাসীর মুখে শুনে দেখতে যান এবং সে সময় পুলিশ মৃতদেহটি উদ্ধার করতে দেখেছেন। মৃতদেহ উদ্ধারে উপস্থিত থাকা এসআই জামিল আহমদ জানান, আফিয়ার মৃতদেহ উদ্ধার করাকালিন সময়ে তার শরীরে ও গলায় একাধিক আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এ ব্যাপারে গোলাপগঞ্জ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হারুনুর রশিদ চৌধুরী জানান, পানিয়াগার কাজের মেয়ে আফিয়াকে হত্যা করা হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। আর এ ঘটনায় আফিয়ার বাবা বাদী হয়ে ৫ জনের নাম উল্লেখ করে থানায় হত্যা মামলা দাখিল করেছেন। আসামীদের গ্রেফতারে পুলিশী অভিযান অব্যাহত আছে ।

ফেইসবুক কমেন্ট অপশন
এই বিভাগের আরো খবর
পুরাতন খবর খুঁজতে নিচে ক্লিক করুন


আমাদের ফেসবুক পেইজ