শুক্রবার, আগস্ট ১৯, ২০ ২২
আন্তর্জাতিক ডেস্ক::
৪ আগস্ট ২০ ২২
৯:২১ অপরাহ্ণ

চীনের মহড়া চলছে, বিশ্বব্যাপী বিপর্যয়ের আশঙ্কা

মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি’র তাইওয়ান সফরের পর ওই অঞ্চলে এ যাবৎকালের সবচেয়ে বড় সামরিক মহড়া শুরু করেছে চীন। এর ফলে বিশ্বব্যাপী সরবরাহ শৃঙ্খল ভেঙে পড়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। যেহেতু বেইজিং সেখানে সত্যিকারের গোলাগুলি দিয়ে মহড়া চালাচ্ছে, তাইওয়ান প্রণালীর দিকে রওনা হওয়া জাহাজগুলোকে বন্দরে বিলম্ব হওয়া, ট্র্যাফিক জ্যাম এবং ঘটনাস্থলে অনুসন্ধানের পাশাপাশি দুর্ঘটনাজনিত সংঘর্ষের উচ্চ ঝুঁকির বিষয়ে সতর্ক করা হয়েছে।

এটি বিশ্বের ব্যস্ততম শিপিং লেনের একটি যা বিশ্বের সার্বিক সরবরাহে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। তাইওয়ান সরকারের সূত্রের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স বলছে, মহড়ায় তাইওয়ানের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় উপকুলে দুটি চীনা ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়া হয়েছে।

‘আমরা আমাদের ক্লায়েন্টদের বলছি যে জাহাজ এবং ক্রুদের নিরাপত্তার জন্য যথেষ্ট হুমকি রয়েছে,’ বলেছেন ক্যাসপার গোল্ডম্যান, মেরিটাইম ইন্টেলিজেন্স কোম্পানি ড্রিয়াড গ্লোবালের একজন বিশ্লেষক, ‘এটি শুধামাত্র লাইভ-ফায়ার অনুশীলন থেকে আসা নিরাপত্তার ঝুঁকির কারণে নয়, বরং রিরুটিং এবং জাহাজের ট্র্যাফিক ঘনত্বের সাথে সম্পর্কিত সমস্যাগুলির কারণে।’ কিছু শিপিং কোম্পানি ইতিমধ্যেই ব্যস্ত বাণিজ্য রুটের থেকে তাদের ট্যাঙ্কার ফিরিয়ে আনা শুরু করেছে, রিপোর্ট অনুসারে, অন্যরা তাদের বিকল্পগুলি মূল্যায়ন করছে।

তাইওয়ান প্রণালী, যার মধ্য দিয়ে এ বছর অর্ধেক বৈশ্বিক কন্টেইনার বহর চলে গেছে, উন্মুক্ত থাকবে বলে আশা করা হচ্ছে। তবে জাহাজগুলিকে এমন অঞ্চলগুলি এড়াতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে যেখানে চীনের সামরিক বাহিনী কাজ করছে। তাইওয়ানকে ঘিরে সমুদ্রে এ মহড়া শুরু হয় স্থানীয় সময় দুপুর ১২টায়। এই মহড়ায় ‘লাইভ অ্যামিউনিশন’ বা তাজা গোলাবারুদ ব্যবহার করা হয়েছে।

দ্বীপটির আশপাশে মোট ছয়টি এলাকায় এই মহড়া চলছে, যার তিনটি পড়েছে তাইওয়ানের ২০ কিলোমিটারের মধ্যে। বেইজিং কর্তৃপক্ষ মহড়ার এলাকায় জাহাজ ও বিমান চলাচলের ক্ষেত্রে এই অংশগুলো এড়িয়ে চলতে পরামর্শ দিয়েছে। রোববার পর্যন্ত এ মহড়া চলবে বলে চীনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। চীনের পূর্বাঞ্চলীয় কমান্ড বলছে, তারা ইতিমধ্যেই তাইওয়ান প্রণালীতে দূরপাল্লার তাজা গোলাবর্ষণ করেছে। চীনের মূল ভূখণ্ড থেকে তাইওয়ানকে বিচ্ছিন্ন করেছে এই প্রণালী। তাইওয়ান বলছে, যেভাবে তার জলসীমায় এবং আকাশপথে বিমান ও জাহাজ চলাচল বাধাগ্রস্ত হচ্ছে তাতে পুরো বিষয়টিকে এক ধরনের অবরোধ বলে মনে হচ্ছে যা তার স্বাধীনতার বিপক্ষে যায়।

চীনের মুল ভূখণ্ড থেকে ১০০ মাইল দুরে অবস্থিত স্ব-শাসিত তাইওয়ানকে চীন বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়া একটি প্রদেশ হিসাবে দেখে এবং তারা চায় দ্বীপটি আবার বেইজিং-এর নিয়ন্ত্রণে আসবে। মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার এবং ডেমোক্র্যাটিক পার্টির অন্যতম শীর্ষ ব্যক্তিত্ব ন্যান্সি পেলোসি তাইওয়ান সফরে যান। গত ২৫ বছরের মধ্যে এই প্রথম শীর্ষস্থানীয় কোন মার্কিন রাজনৈতিক নেতা দ্বীপটিতে গেলেন। তার সফরকে চীন ‘চরম বিপজ্জনক’ বলে আখ্যা দেয়।

চীনা হুমকির মুখেই বিতর্কিত এই সফর শুরু করেন মার্কিন হাউস স্পিকার। তার এই সফরের প্রতিবাদ জানাতে বেইজিংয়ে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতকে তলব করে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। ন্যান্সি পেলোসি তার সফর শেষ করার কিছু পরই তাইওয়ানের স্ব-ঘোষিত আকাশ প্রতিরক্ষা সীমার ভেতরে ঢুকে পড়ে ২৭টি চীনা যুদ্ধবিমান। এরপর চীন শুরু করে ওই অঞ্চলের সবচাইতে বড় সামরিক মহড়া। সূত্র: দ্য টেলিগ্রাফ, বিবিসি।

ফেইসবুক কমেন্ট অপশন
এই বিভাগের আরো খবর
পুরাতন খবর খুঁজতে নিচে ক্লিক করুন


আমাদের ফেসবুক পেইজ