শনিবার, অক্টোবর ১, ২০ ২২
ডেস্ক নিউজ::
২১ সেপ্টেম্বর ২০ ২২
৫:৩৩ অপরাহ্ণ

সৎ ছেলের বিরুদ্ধে প্রাণনাশের হুমকি প্রদানের অভিযোগ

সিলেট নগরীর মেন্দিবাগ এলাকার মরহুম আব্দুস ছত্তারের ছেলে আমজাদ হোসেনের বিরুদ্ধে উদ্ভট, কাল্পলিক ও মানহানিকর বক্তব্য উপস্থাপনের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন আব্দুস ছত্তারের দ্বিতীয় স্ত্রী তাহমিনা বেগম। বুধবার সংবাদ সম্মেলন করে এ প্রতিবাদ জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে আমজাদ হোসেনের বিরুদ্ধে জুলুম, অত্যাচার, হুমকি-ধমকি ও প্রাণনাশের হুমকি প্রদানেরও অভিযোগ করেন তিনি। লিখিত বক্তব্যে তাহমিনা বেগম বলেন, আমার স্বামীর মৃত্যুর পর এতিম দুটি সন্তান নিয়ে প্রতিনিয়ত জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বসবাস করে আসছি। আমার স্বামীর প্রথম স্ত্রী সাবিহা খাতুন ও তার ছেলে আমজাদ হোসেনের জুলুম, অত্যাচার, হুমকি-ধামকি মিথ্যাচার আমাকে ও আমার সন্তানদের অস্বীকার করাসহ তাদের ঘৃণ্য কর্মকান্ডে আজ আমার জীবন বিপন্ন হয়ে পড়েছে। সম্প্রতি সিলেট প্রেসক্লাবে আমজাদ হোসেন সংবাদ সম্মেলন করে উদ্ভট, কাল্পলিক ও মানহানিকর বক্তব্য উপস্থাপন করেছেন বলেও জানান তিনি।

তিনি বলেন, আমজাদ হোসেন তার বক্তব্যে বলেছেন আমার কাছে নাকি তাদের প্রবাসী পরিবার জিম্মি। আমি নাকি একটি কুচক্রিমহল নিয়ে তাদের সহায় সম্পত্তি দখল ও প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছি। তাছাড়া আমাকে তাদের কাজের মেয়ে উল্লেখ করে বলেছেন স্থানীয় কাউন্সিলর ও স্থানীয় কয়েকজনকে নিয়ে নাকি আমি তাদের সম্পত্তি আত্মসাত করছি।

যা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট। তার স্বামীর দেওয়া ছত্তার ম্যানশনসহ অন্যান্য সম্পত্তি জোর পূর্বক কেড়ে নিতে সাবিহা খাতুন ও তার ছেলে আমজাদ হোসেন মরিয়া হয়ে উঠেছেন বলে অভিযোগ কওে বলেন, তারা এলাকার জনপ্রতিনিধি, আত্মীয়স্বজনসহ মুরব্বীয়ান কারো কথা না শোনে পেশী শক্তি দিয়ে আমাকে অপমান ও আমার বৈধ সম্পত্তি দখল করে নিতে নানা কৌশল ও মিথ্যাচারের আশ্রয় নিয়েছেন। সত্য অস্বীকার করে তারা আমি ও আমার সন্তানদের নিশ্চিহৃ করে দিতে চাচ্ছেন।

আমজাদ হোসেন সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ প্রশাসনের কর্মরতব্যক্তি, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, গণ্যমান্য ব্যক্তিদের বিরুদ্ধেও কটুক্তি করেছেন, যারা সত্য ও ন্যায়ের পক্ষে কথা বলেছিলেন। তিনি বলেন, আমার স্বামী দূরারোগ্য ব্যধিতে আক্রান্ত হওয়ার পর ২০২২ সালের ৬ এপ্রিল তার নামীয় ছত্তার ম্যানশনটি আমাদের নাবালক পুত্র মো: আজহার হোসেনের নামে রেজিষ্ট্রিকৃত অছিয়ত নামামূলে হস্তান্তর করেন এবং নাবালক সন্তানের পক্ষে মার্কেটটির রক্ষনাবেক্ষণ ও নিয়ন্ত্রণকারী হিসেবে আমাকে নিযুক্ত করেন।

দুঃখজনক হলেও সত্য আমার স্বামী যখন জটিল রোগ, দুঃসহ জীবন ও মৃত্যুর দুয়ারে দাঁড়িয়ে তখনও তার প্রথম স্ত্রী সাবিহা ও তার সন্তানরা একবারের জন্য হলেও মৃত্যু পথযাত্রী আমার স্বামীর পাশে এসে দাঁড়াননি। ‘সাবিহা খাতুন বর্তমানে লন্ডন থেকে দেশে এসে আমার সন্তানদের মানসিকভাবে নির্যাতন শুরু করেন। আমার বিবাহিত জীবনকে অস্বীকার করে আমার বিরুদ্ধে নানা কুরুচিপূর্ণ কথাবার্তা বলে যাচ্ছেন। আমাকে আমার স্বামীর ঘর থেকে জোরপূর্বক বের করে দেয়ার ষড়যন্ত্র করছেন।’

যোগ করেন তিনি। সম্পত্তি গ্রাস করতে তাকে ও তার সন্তানদের প্রাণনাশের হুমকিও দিচ্ছেন বলেও অভিযোগ করেন তাহমিনা বেগম। তিনি বলেন, এখন আমার স্বামীর স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি, বাসা বাড়ি, আমার ছেলের নামে অছিয়তকৃত ছত্তার ম্যানশন সন্ত্রাসীদের নিয়ে জোর করে দখলে নেওয়ার অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছেন সাবিহা খাতুন ও তার ছেলে।

এ সময় তিনি জানান, বিভিন্ন অভিযোগে প্রথম স্ত্রীর সাবিহা খাতুন আব্দুস ছত্তারের বিরুদ্ধে কোতোয়ালী মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরীর জন্য আবেদন করেন। এছাড়াও সাবিহা খাতুনের ভাই মো: শফিক আলীও সাধারণ ডায়েরী করেন। এমন পরিস্থিতে সন্তানদেও নিয়ে সুস্থভাবে বেঁচে থাকতে প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট সব মহলের সহযোগিতা কামনা করেন তাহমিনা বেগম।

ফেইসবুক কমেন্ট অপশন
এই বিভাগের আরো খবর
পুরাতন খবর খুঁজতে নিচে ক্লিক করুন


আমাদের ফেসবুক পেইজ