শনিবার, অক্টোবর ১, ২০ ২২
জাবেদ তালুকদার, নবীগঞ্জ::
১৯ সেপ্টেম্বর ২০ ২২
১০ :১৬ অপরাহ্ণ

নবীগঞ্জে কর্মস্থলের শেষ দিনে কথা রাখলেন ইউএনও, দোকান ঘর পেল প্রতিবন্ধি ইমন

নবীগঞ্জে প্রতিশ্রুতি দিয়ে কথা রাখলেন ইউএনও শেখ মহিউদ্দিন আহমেদ। সরকারের বরাদ্দ থেকে একটি টঙ্গী দোকান বানিয়ে দিলেন শারীরিক প্রতিবন্ধি ইমন রায়কে। ২০২২ সালের ১৬ জুন BNN news থেকে ইমন রায়ের দুর্বিষহ জীবন একটি লাইভ করেন হবিগঞ্জ সমাচার পত্রিকার প্রতিনিধি সাংবাদিক নাবেদ মিয়া।

এরপর বিষয়টি নজরে আসে নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ মহিউদ্দিন এর। শারীরিক প্রতিবন্ধি ইমন রায় নবীগঞ্জ সদর ইউনিয়নের আদিত্যপুর গ্রামের বাসিন্দা এবং আউশকান্দি র.প স্কুল এন্ড কলেজের মেধাবী শিক্ষার্থী। তার বাবা, মা ভাইবোন থাকেন ঢাকার একটি গার্মেন্টসে। অভাবের সংসার তাই নবীগঞ্জ সদর ইউনিয়ন থেকে সুনামগঞ্জ জেলার জগন্নাথপুরে মামার বাড়ি গিয়ে আশ্রয় নেয় ইমন।

সেখান থেকেই প্রতিদিন নবীগঞ্জ হয়ে প্রায় ১ শত টাকা গাড়ি ভাড়া দিয়ে আউশকান্দি কলেজে যাওয়া আসা করতে হত ইমনের। আর এই একশ টাকা জোগাড় করতে সাহায্য নিতে হত বন্ধুবান্ধবের কাছে। প্রতিদিন পাওয়া যেটা সম্ভব ছিল না। এভাবেই দুর্বিষহভাবে চলছিলো ইমন রায়ের জীবন যাপন।

তারপর ও জীবনের সাথে যুদ্ধ করে পড়ালেখা চালিয়ে যায় সে। বিষয়টি নিয়ে ১৬ জুন সাংবাদিক নাবেদ মিয়া ও দেশটিভির হবিগঞ্জ প্রতিনিধি এসএম আমীর হামযা কথা বলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ মহিউদ্দিন আহমেদ এর সঙ্গে। এসময় সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ইমন রায় আমাদের সাথে যোগাযোগ করলে তাকে আমরা দু'ধরণের সাহায্য করতে পারি। প্রথমটি হলো, আমরা তাকে একটি ভ্যান গাড়ি দিতে পারি অথবা টঙ্গী দোকান।

তবে সে কোনটি নিতে চায় আগে জানতে হবে। এরপর ইমন রায় জানায় সে ব্যবসা করতে চায়। তার টঙ্গী দোকান হলেই চলবে। এরপর গতকাল সোমবার বিকেলে ইমন রায়ের কাছে টঙ্গী দোকান হস্তান্তর করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ মহিউদ্দিন। আর এইদিনই ছিল নবীগঞ্জ উপজেলায় তার কর্মস্থলের শেষ দিন। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক হয়ে বদলি হয়েছেন সুনামগঞ্জ জেলায়।

এ ব্যাপারে তিনি বলেন, বিদায় বেলা একজন শারীরিক প্রতিবন্ধির কাছে সরকার বরাদ্দকৃত দোকান উপহার দিতে পেরে খুব ভাল লেগেছে। তার উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ কামনা করি। এদিকে ইমন রায় টঙ্গী দোকান পেয়ে অনেক খুশি হয়েছে।

ইউএনও এবং সাংবাদিকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানায়। এসময় ইমন রায়কে নগদ ২ হাজার টাকা প্রদান করা হয়। নবীগঞ্জ পৌরসভার শেরপুর রোড লাইটেস ট্যান্ডের পাশে দোকান বসানোর জন্য বলা হয়েছে।

ফেইসবুক কমেন্ট অপশন
এই বিভাগের আরো খবর
পুরাতন খবর খুঁজতে নিচে ক্লিক করুন


আমাদের ফেসবুক পেইজ