শুক্রবার, ডিসেম্বর ২, ২০ ২২
আন্তর্জাতিক ডেস্ক::
২১ অক্টোবর ২০ ২২
৭:৪০ অপরাহ্ণ

ইমরান খানকে 'সরকারি পদের অযোগ্য' ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন

বেআইনিভাবে রাষ্ট্রীয় উপহার বিক্রি করার দায়ে পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে সরকারি পদের অযোগ্য বলে ঘোষণা করেছে দেশটির নির্বাচন কমিশন। দেশটির ক্ষমতাসীন কোয়ালিশনের অভিযোগ, ইমরান খান ২০১৮ থেকে ২০২২ সাল পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী থাকার সময় বিদেশী উচ্চপদস্থ গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গের কাছ থেকে যেসব উপহার পেয়েছিলেন, সেগুলোর বিক্রি থেকে পাওয়া অর্থের বিস্তারিত প্রকাশ করেননি । ক্ষমতাসীন কোয়ালিশন এ ব্যাপারে নির্বাচন কমিশনের রুলিং চেয়েছিল।

এরপরই নির্বাচন কমিশনের ট্রাইবুনাল এক লিখিত রুলিংএ সংবিধানের ৬৩(১)(পি) ধারা অনুযায়ী ইমরান খানকে পার্লামেন্ট বা প্রাদেশিক আইনসভার সদস্য হিসেবে নির্বাচিত বা মনোনীত হবার অযোগ্য বলে ঘোষণা করে। এ খবর দিয়েছে বিবিসি। খবরে বলা হয়, কমিশনের এ রুলিং-এর অর্থ হচ্ছে যে ইমরান খান বর্তমান পার্লামেন্টের মেয়াদ পর্যন্ত এর সদস্য হবার অযোগ্য থাকবেন। পার্লামেন্টে তার আসনটিতে উপ-নির্বাচন হতে পারে বলেও উল্লেখ করা পাক গণমাধ্যমগুলোতে।

এই নিষেধাজ্ঞা আজীবনের জন্য নাকি সীমিত সময়ের - তা তাৎক্ষণিকভাবে স্পষ্ট হয়নি। ইমরান খান বলছেন, এ বিষয়টি রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। তবে ক্রিকেটার থেকে রাজনীতিবিদ হওয়া ৭০ বছর বয়স্ক ইমরান গত মাসে স্বীকার করেন যে তিনি প্রধানমন্ত্রী থাকার সময় পাওয়া অন্তত চারটি উপহার বিক্রি করেছিলেন। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক রিপোর্টে বলা হয়, বিক্রি করে দেয়া উপহারের মধ্যে কয়েকটি দামী হাতঘড়ি ছিল, যা কোন একটি রাজপরিবারের দেয়া এবংএগুলোর মূল্য ৬৩৫,০০০ ডলারের সমান।

তার সহযোগীরা বলছেন, তারা এ সিদ্ধান্তকে আদালতে চ্যালেঞ্জ করবেন। তারা এর প্রতিবাদে বিক্ষোভ করার জন্য ইমরান খানের সমর্থকদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, পাকিস্তানের কয়েকটি শহরে পিটিআই সমর্থকরা রাস্তা আটকে দিয়ে বিক্ষোভ করেছে। তবে কোন সহিংস ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

ফেইসবুক কমেন্ট অপশন
এই বিভাগের আরো খবর
পুরাতন খবর খুঁজতে নিচে ক্লিক করুন


আমাদের ফেসবুক পেইজ